নাশকতা মামলায় গাংনীতে বিএনপি নেতা জাহাঙ্গীর গ্রেফতার

নাশকতা মামলায় গাংনীতে বিএনপি নেতা জাহাঙ্গীর গ্রেফতার

শেয়ার করুন

নাশকতা মামলায় মেহেরপুরের গাংনীর করমদি গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমকে (৪৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার দুপুরে গাংনীস্থ বাস ভবন থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

জাহাঙ্গীর আলম তেঁতুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক চেয়ারম্যান ও গাংনী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক।

গাংনী থানা সুত্রে জানা গেছে, গাংনী থানার এসআই মাসুদুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় গাংনীস্থ বাসা থেকে জাহাঙ্গীর আলমকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

গেল ২৮ নভেম্বর রাত সাড়ে আটটার দিকে গাংনী মৎস্য হ্যাচারির পাশে ককটেল বিষ্ফোরিত হয়। ঘটনাস্থল থেকে অবিষ্ফোরিত তিনটি ককটেল উদ্ধার করা হয়। এর আগে গাংনী শহরে বিক্ষোভ মিছিল করছিল ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বিএনপি নেতাকর্মীরা এ ককটেল হামলা চালিয়েছে অভিযোগে গাংনী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন সাবেক ছাত্রনেতা শাহিদুজ্জামান সিপু। নাশকতার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় বিএনপি নেতাকর্মীদের আসামি করা হয়।

ওই মামলার আসামি হিসেবে জাহাঙ্গীর আলমকে গ্রেফতার করে মেহেরপুর আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন গাংনী থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক। জাহাঙ্গীর আলমের নামে অস্ত্র ও নাশকতার আরও ১০টি মামলা রয়েছে বলেও জানান ওসি।

তবে ষড়যন্ত্র ও মিথ্যা মামলায় বিএনপি নেতা জাহাঙ্গীর আলমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ দাবি জানিয়ে বিএনপির আন্দোলন বানচাল করতে গ্রেফতার অভিযান চালানো হচ্ছে বলে দাবি করে জাহাঙ্গীর আলমের মুক্তি দাবি করেছেন গাংনী উপজেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবলু। গ্রেফতার অভিযান বন্ধ করতে তিনি পুলিশের প্রতি অনুরোধ করেন।

গাংনী উপজেলা